Rangamati

রাঙামাটি 

রাঙামাটি জেলা নামকরণ সম্পর্কে বিলু কবীরের লেখা ‘বাংলাদেশ জেলা : নামকরণের ইতিহাস’ বই থেকে জানা যায় তা হলো- এই এলাকায় পর্বতরাজি গঠিত হয়েছিল টারশিয়রি যুগে। এই যুগের মাটির প্রধান ব্যতিক্রম এবং বৈশিষ্ট্য হচ্ছে এর রঙ লালচে বা রাঙা। এই এলাকার গিরিমৃত্তিকা লাল এবং মাটিও রাঙা বলেই এই জনপদের নাম হয়েছে রাঙামাটি। প্রকৃতি সূচক এই নামকরণটির বিষয়ে অন্য প্রচলিত কথাপরম্পরা হলো- বর্তমান রাঙামাটি জেলা সদরের পূর্বদিকে একটি ছড়া ছিল, যা এখন হ্রদের মধ্যে নিমজ্জিত। এই হ্রদের স্বচ্ছ পানি যখন লাল বা রাঙামাটির উপর দিয়ে ঢাল বেয়ে প্রপাত ঘটাতো, তখন তাকে লাল দেখাতো। তাই এই ছড়ার নাম হয়েছিল ‘রাঙামাটি’। এই জেলা সদরের পশ্চিমে আরও একটি ছাড়া ছিল। অনুরূপ কারণে তার নাম দেয়া হয়েছিল ‘রাঙাপানি’। এই দুই রাঙা ছড়ার মোহনার বাঁকেই গড়ে উঠেছে বর্তমান জেলা শহর। যা মূলত ছিল অনাবাদী টিলার সমষ্টি এবং বহু উপত্যকার এক নয়নাভিরাম বিস্ময়ভূমি। এই দুটি ছড়া রাঙামাটি ও রাঙাপানি হতে ‘রাঙামাটি’ জেলার নামকরণ হয়েছে বলে ধারণা করা হয়। ১৯৮৩ সালে রাঙামাটি পার্বত্য জেলা গঠন করা হয়।

 

বিখ্যাত খাবার:

আনারস, কাঠাল, কলা

 

বিখ্যাত স্থান:

কাপ্তাই হ্রদ

কর্ণফুলী হ্রদ

উপজাতীয় জাদুঘর

কাপ্তাই জাতীয় উদ্যান

জেলা প্রশাসক বাংলো

জেলা প্রশাসক এলএইচ নিবলেটের সমাধি

রাইক্ষ্যংয়ের উজান বেয়ে পানছড়ি

পেদা টিং টিং

রাইংখ্যং পুকুর

বীরশ্রেষ্ঠ ল্যান্সেনায়েক মুন্সী আব্দুর রউফ স্মৃতি ভাস্কর্য

ঐতিহ্যবাহী চাকমা রাজার রাজবাড়ি

রাজা জং বসাক খানের দীঘি ও মসজিদ

রাজা হরিশ চন্দ্র রায়ের আবাসস্থলের ধবংসাবশেষ

ঝুলন্ত সেতু

বুদ্ধদের প্যাগোডা

রাজবন বিহার

শুভলং ঝর্ণা